আফগানিস্তানের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ জব্দ করার নির্দেশ দিয়েছে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন

Posted on by

মোঃ অহিদুজ্জামান : আফগানিস্তানের নতুন শাসকগোষ্ঠী তালেবান ক্ষমতায় আসার পর দেশটি বড় আর্থিক সংকটের মুখে পড়তে চলেছে। পশ্চিমানির্ভর আশরাফ গনি সরকারকে হটিয়ে পুরো দেশের ওপর তালেবান নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার পর যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তানের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ আটকে দিয়েছে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের মিত্র জার্মানিও আফগানিস্তানে তার আর্থিক সহায়তা স্থগিত করার কথা জানিয়েছে। এ অবস্থায় শাসনকাজ পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থের চেয়ে অনেক কম অর্থকে পুঁজি করে তালেবানকে তাদের যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার নিশ্চিত চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। দ্য গার্ডিয়ান, ডন, ফাইন্যান্সিয়াল টাইমস-এর খবর।

খবরে বলা হয়, গত রোববার আশরাফ গনি সরকারের পতনের পর তালেবান সম্ভবত খুব দ্রুতই দেশ পরিচালনার ক্ষেত্রে ওই আর্থিক সংকটে পড়তে চলেছে। কেননা, আফগানিস্তানের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ তাদের কাছে পৌঁছানোর সম্ভাবনা খুব কম। পশ্চিমা দাতারা দেশটির বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান পরিচালনায় প্রয়োজনীয় অর্থের প্রায় ৭৫ শতাংশের জোগান দিয়ে থাকে। তারা এরই মধ্যে তাদের সহায়তা বন্ধ করে দিয়েছে বা বন্ধের হুমকি দিয়েছে। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের চাপে আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক তহবিলও (আইএমএফ) দেশটির জন্য তাদের বরাদ্দ আটকে দিয়েছে ।

আগে থেকেই তালেবানকে অর্থনৈতিকভাবে সমর্থনদানকারী দেশগুলোর অন্যতম ইরান, পাকিস্তান ও উপসাগরীয় কয়েকটি দাতা রাষ্ট্র। তবে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সংগঠনটি বৈদেশিক নির্ভরতা কমিয়ে আরও বেশি স্বনির্ভর হওয়ার চেষ্টা করছে। গত বছর সংগঠনটির আর্থিক তহবিলের পরিমাণ ছিল ১৬০ কোটি মার্কিন ডলার। শাসনকাজ পরিচালনার জন্য এ অর্থ একেবারে নগণ্য।

গত বুধবার আফগানিস্তানের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর জানান, দেশটির বৈদেশিক মুদ্রার বর্তমান মজুত ৯০০ কোটি (৯ বিলিয়ন) মার্কিন ডলার। কিন্তু তালেবান যোদ্ধাদের হাতে কাবুলের পতনের পর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন রোববার দেশটিতে আফগান সরকারের বিভিন্ন ব্যাংক হিসাবে রক্ষিত বৈদেশিক মুদ্রা জব্দ করার নির্দেশ দিয়েছে। যার অর্থ হলো, বৈদেশিক মুদ্রার এ রিজার্ভ এখন আর আফগানিস্তানের হাতে নেই।

গভর্নর আজমল আহমাদি ওই দিন টুইট করেন, ৯০০ কোটি ডলারের প্রায় ৭০০ কোটি ডলারই মার্কিন ফেডারেল রিজার্ভে বন্ড, স্বর্ণ ও অন্যান্য সম্পদ হিসেবে জমা রয়েছে। চলতি সপ্তাহে তালেবান আফগানিস্তানে পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার আগপর্যন্ত দেশটির সরকার এ তহবিল নগদ অর্থে বুঝে নেয়নি। তিনি আরও লেখেন, ‘পরবর্তী চালান আকারে এই তহবিল আর কখনোই আসবে না। দৃশ্যত, আমাদের অংশীদারেরা গোয়েন্দাগিরিতে ভালো। আফগানিস্তানে কী ঘটতে চলেছে, তারা তা আগেই বুঝে গেছে।’

আহমাদি উল্লেখ করেন, মার্কিন ডলারের ঘাটতিতে আফগানবাসী আর্থিক অবমূল্যায়ন ও মুদ্রাস্ফীতির সম্মুখীন হবে। এতে দরিদ্ররা আরও বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে। যুক্তরাষ্ট্রের চোখে তালেবান ‘সন্ত্রাসী গোষ্ঠী’ হওয়ায় (আনুষ্ঠানিকভাবে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা গ্রহণের পর) ওই রিজার্ভ পাওয়া তাদের জন্য খুব কঠিন হবে। তিনি বলেন, ‘তালেবান সামরিকভাবে জিতেছে। এখন তারা দেশ পরিচালনা করতে যাচ্ছে। কিন্তু এটা সহজ কাজ নয়।’

কিছু বিশেষজ্ঞের মতে, তালেবানের ওপর দীর্ঘদিন ধরে ঝুলছে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞার খড়্গ। এতে গত পাঁচ বছরে বিশেষভাবে আফিমসহ অন্যান্য পণ্যের বাণিজ্য থেকে অর্থ সংগ্রহে ঝুঁকতে হয়েছে তাদের। দুই বছর আগে তালেবানের ভবিষ্যৎ নিয়ে পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোর এক গোপন প্রতিবেদনে বলা হয়, তালেবান অর্থনৈতিক ও সামরিক দিক থেকে তাদের লক্ষ্য অর্জন করে ফেলেছে বা লক্ষ্য অর্জনের পথে রয়েছে। এই স্বাধীন আর্থিক সক্ষমতা অন্যান্য দেশের সরকার বা নাগরিকদের সমর্থন ছাড়াই সামরিক অভিযান পরিচালনার জন্য তাদের উপযুক্ত করে তুলেছে।

তবে দেশ পরিচালনার জন্য যথেষ্ট অর্থের বিকল্প নেই। তালেবানও সেটি জানে। চলতি বছর এক অনুষ্ঠানে আফগানিস্তান পুনর্গঠনবিষয়ক যুক্তরাষ্ট্রের স্পেশাল ইন্সপেক্টর জেনারেল জন সপকো বলেন, ‘এমনকি, দৃশ্যত তালেবানও জানে, আফগানিস্তানের জন্য বৈদেশিক সহায়তার ভীষণ প্রয়োজন।’

আফগানিস্তানে খাদ্যসংকটের ব্যাপারে সতর্কতা
আল-জাজিরা জানায়, আফগানিস্তানে জাতিসংঘ খাদ্য কর্মসূচির (ডব্লিউএফপি) প্রধান মেরি এলেন ম্যাকগ্রোয়ার্থি সতর্ক করে বলেছেন, দেশটিতে ১ কোটি ৪০ লাখ মানুষ তীব্র ক্ষুধার সম্মুখীন হতে পারে। ফলে সেখানে এক মানবিক সংকট দেখা দিতে পারে।

অনলাইনে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক ব্রিফিংয়ে ডব্লিউএফপির এই কান্ট্রি ডিরেক্টর বলেন, সংঘাত, তিন বছরের মধ্যে দ্বিতীয় তীব্র খরা এবং করোনার সংক্রমণজনিত কারণে সৃষ্ট অর্থনৈতিক ও সামাজিক প্রভাবে আফগানিস্তানে এরই মধ্যে মানবিক বিপর্যয় শুরুর মতো কঠিন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

More News from অর্থনীতি

More News

Developed by: TechLoge

x