শুভ‌’র চলে যাওয়া বড় বেদনার

Posted on by

newslife24.com লন্ডন ডেস্ক : ৮ ফেব্রুয়ারী সোমবার দুপুর ২.৪৫ মিনিট।তুষারে আচ্ছন্ন ব্রিটেনের জনপথ ।এই বৈরী আবহাওয়ার নিস্তব্দতাকে উপেক্ষা করে মাত্র ৩৬ বছর বয়সে চলে গেলো আমার পরম স্নেহের তৌহিদুল হক শুভ ।( ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নইলাহি রাজিউন) ১৬ দিন নর্থাম্পটন হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে লড়াই করে তার শেষ যাত্রা ,যা আমাদের সকলের জন্য এক অবধারিত নির্মম সত্য।সবাই আমরা অপেক্ষমান একই লক্ষে।

১৫ জানুয়ারী সপরিবারে করোনা পসেটিভের খবর পায় শুভ ও তার জীবন সঙ্গী ফারিয়া। এর আগেও একবার মরণব্যাধি করোনায় আক্রান্ত হয়েছিল ফারিয়া। ডাক্তারের পরামর্শে বাসায় এবারও অবস্থান করে তারা।ভালোই ছিল দুজন। হটাৎ সেলফ আইসোলেশনের নবম দিনে ভুল বকতে শুরু করে সে। এক পর্যায় জ্ঞান হারিয়ে ফেলে তৌহিদুল হক শুভ। তাৎক্ষণিক হাসপালাতে নিলে শুরু হয় নিবিড় পরিচর্যা। রাখা হয় ভেন্টিলেশনে। এরই মধ্যে পার হয় প্রায় ১০ দিন। অবস্থার আরো অবনতি হলে তাকে রাখা হয় লাইফ সাপোর্টে। অবশেষে স্ত্রী ফারিয়ার উপস্থিতিতে সোমবার লাইফ সাপোর্ট খুলে দিলে সকলকে কাঁদিয়ে শুভ পাড়ি জমায় না ফেরার দেশে।

শুভ’র সাথে আমার পরিচয় খুব বেশি দিনের নয়।কয়েক বছর আগে বাংলাদেশের সাথে ইংল্যান্ডের ক্রিকেট খেলা দেখতে বার্মিংহাম থেকে লন্ডনে আসে শুভ ও ফারিয়া।স্টেডিয়ামে পরিচয় হয় ওদের সাথে।অমায়িক ব্যবহার ,তারুণ্যতা ও দেশের প্রতি ওদের মমতা দেখে মুগ্ধ হই ।আমি থাকি সাগর পাড়ের লন্ডনে ওরা বার্মিংহাম, তার পরেও শুরু হয় সক্ষতা , একসাথে পথ চলা।

ঘনিষ্ঠ পথ চলার সুবাদে নিকট আত্মীয়ের মতো করে গভীরভাবে ওদের দেখেছি ,চিনেছি। সাদামাঠা জীবনে ওর বৈচিত্র ও বৈশিষ্টে ঠাসা জীবন সাধনের এক অন্তহীন রূপরেখা দেখে অবাক হয়েছি । রাজনীতি শুভর নেশা ছিল বলে কখনো মনে হয়নি ,তবুও দেশ, মা, মাটি ,গণতন্ত্র ,স্বাধীনতা ,সার্বভৌম ও জাতীয়তাবাদ নিয়ে তার বিচার বিশ্লেষণ ছিল চমক লাগার মতো।
২০১৯ সালে একটা অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের কাজে পর্তুগাল গিয়েছিলাম।আমার ছফরসঙ্গী ছিল শুভ ও ফারিয়া। একই হোটেলে ছিলাম আমরা। সারাদিন কখনো একসাথে আবার কখনো ভিন্ন ভাবে ঘুরে বেড়িয়েছি । রাতে হোটেলে ফিরতে দেরি হলে শুভ ও ফারিয়ার উৎবিগ্নতার কথা আমার স্মৃতির বীণায় আজও বাজে।

১৯৮৪ সালের ১৭ নভেম্বর তৌহিদুল হক শুভ যশোরের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করে। মৃত্যু কালে জীবন সঙ্গী ফারিয়া বাবা মা ভাই ও অসংখ্যা গুণগ্রাহী রেখে গেছে । ফারিয়া ব্রিটেনে একজন সার্টিফায়েড একাউনটেন্ট।

একটা দারুন কর্মময় জীবন কাটিয়ে গেলো শুভ তার অকালপ্রয়াত সত্ত্বেও। বিশ্ব করোনা মহামারী জোর করেই তার জীবনটা কেড়ে নিলো।আর এ যুদ্ধে বলিষ্ঠ সহযোদ্ধা তার পরমপ্রিয় জীবনসঙ্গী ফারিয়ার অবদান ভুলে যাবার নয়। শুভ আজ আর আমাদের মাঝে নেই। ফিরেও আসবে না আর কোনোদিন।কিন্তু রয়ে গেলো তার মূল্যবান স্মৃতি। সে জানতো কোন কাজটা তাকে করতে হবে। কোনটা হবে না। সেজন্য অল্প একটু জীবনে তার কর্ম ও সাফল্য অনেক। tv19online.com পরিবারের পক্ষ থেকে তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি।মহান আল্লাহ দয়া করে তাকে যেন জান্নাতুল ফেরদৌসের মেহমান বানিয়ে নেন , আমিন।
লন্ডন :০৮.০২.২০২১ (শেখ মহিতুর রহমান বাবলু )

More News from কমিউনিটি

More News

Developed by: TechLoge

x