মাহমুদুল হক মিরাজ : কমুনিটির এক নক্ষত্রের বিদায়

Posted on by

নিউজ লাইফ লন্ডন ডেস্ক : না ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন বাংলাদেশী ইতালীয়ান ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকে’র সন্মানিত প্রতিষ্ঠাতা সহ সভাপতি মাহমুদুল হক মিরাজ। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)।গতকাল ৭ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার সকাল ৭:৩০ মিনিটে London whippe Cross university হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন তিনি।মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫২ বছর।

কভিড-১৯ করোনায় আক্রান্ত হয়ে কয়েকদিন আগে হাসপাতালে ভর্তি হন মিরাজ। অবস্থার ভীষণ অবনতি হলে তার লাইফ সাপোর্ট পরিবারের উপস্থিতিতে খুলে ফেলার সিদ্ধান্ত নেন কর্তব্যরত ডাক্তার। হাসপাতালের পক্ষ থেকে মরহুমের পরিবারকে ডেকে পাঠানো হয় গত ৬ জানুয়ারী বুধবার। সেখানে সৃষ্টি হয় এক রিদয়বিদারক পরিবেশের।কান্নায় ভেঙে পড়েন পরিবারের সদস্যরা।শেষ চেষ্টা করার আকুতি জানানো হয় পরিবারের পক্ষ থেকে ।এমন ঘটনায় বিচলিত উপস্থিত সবাই। এই মর্মান্তিক দৃশ সহ্য করতে না পেরে কর্তব্যরত ডাক্তার আরো একদিন অর্থাৎ ৭ জানুয়ারী দুপুর ২ টা পর্যন্ত রোগীকে লাইফ সাপোর্ট না খোলার সিদ্ধান্ত নেন । কিন্তু নির্ধারিত সময়ের কয়েক ঘন্টা আগেই প্রবাসী সংগ্রামী জীবনকে পেছনে ফেলে চিরবিদায় নেন মিরাজ ।

১৯৬৭ সালের ২৪ অগাস্ট মুন্সীগঞ্জের বিক্রমপুরে জন্মগ্রহণ করেন মাহমুদুল হক মিরাজ।দেশে থাকতে তিনি ঢাকার গেণ্ডারিয়াতে বসবাস করতেন। ২০০৮ সালে তিনি ইতালির সাগরকন্যা খ্যাত ভেনিসের মেস্ত্রে থেকে স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য স্বপরিবারে চলে আসেন সাগর পাড়ের লন্ডনে।মৃত্যু কালে তিনি এক ছেলে ,এক মেয়ে, স্ত্রি ও অসংখ্যা গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মরহুমের দাফন কাফন সম্পন্ন হয়নি। পরিবার সূত্রে জানা যায় সকল আনুষ্ঠানিকতা শেষে আগামী ৯/১০ জানুয়ারী সর্বোচ ৩০ জন মুসল্লির উপস্থিতিতে জানাজা শেষে তাকে সমাহিত করা হতে পারে লন্ডনের মুসলিম কবরস্থান গার্ডেন্স অফ পিস এ।
মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়ার অনুরোধ করা হয়েছে পরিবারের পক্ষ থেকে।

আলাপ, আলোচনা,ব্যবহার চালচলন ও কাজে কর্মে মধুর মেজাজের ছিলেন মিরাজ।সদালাপী ও পরোপকারী হিসাবেও কমিউনিটিতে রয়েছে তার ব্যাপক সুখ্যাতি। বেঁচে থাকতে যারা সততা মেধা ও নিরলস কর্ম প্রয়াসের গুনে সুনাম অর্জন করেন ,মৃত্যুর পর তারা হন স্মরণীয় বরণীয়।মাহমুদুল হক মিরাজ হলেন এমনি এক স্মরণীয় ও বরণীয় কমিউনিটি নেতা। যার কথা শ্রদ্ধার সাথে কমিউনিটি স্মরণ করবে অনেক অনেক দিন।

মৃত্যু মৃত্যুই।তা সে স্বাভাবিক হোক আর অস্বাভাবিক।অবশ্য আমরা যারা গণমাধ্যম কর্মী তাদের কাছে এসব অভ্যাসের অংশ। আমাদের লক্ষ থাকে এই মৃত্যু সংশ্লিষ্ট খবরের গুরুত্ব। মাথাব্যাথা থাকে খবরের ট্রিটমেন্ট নিয়ে। মৃত্যু সেই পরিবারের জন্য কতখানি অনিষ্টকর ,কত বড় ধাক্কা ,কি অপরিসীম ক্ষতি তা নিয়ে আমাদের মাথা ঘামানোর অবকাশ নেই। কিন্তু কখনো কখনো থমকে যায় আমাদেরও অবচেতন মন। সাংবাদিকতার খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসে একজন আটপৌরে সাধারণ মানুষ। অন্যের মতো অনুভূতি জাগে আমাদের মাঝে। শোকে দুঃখে কাতর হই আমরা। বিয়োগব্যাথা বিহ্ববল করে তোলে পেশাদারিত্বের আড়ালে। যেমন হয়েছে মাহমুদুল হক মিরাজের আকর্ষিক মৃত্যুতে।তার পরিবারের সাথে টিভি১৯ পরিবারও শোকাহত।
শেখ মহিতুর রহমান বাবলু

সূত্র : tv19online.com

More News from কমিউনিটি

More News

Developed by: TechLoge

x