ঈদ আসলে সবার ঘরে আসেনা

Posted on by

মন্নুজান মনজু : ঈদ আসলে সবার ঘরে আসেনা। যে পরিবারটা গতবছর কোরবানি দিতো সে পরিবারের বাবাটার হয়ত চাকরি হারিয়েছে অথবা ব্যবসা মন্দার কারনে এবার কোরবানি দিতে পারছে না। তার ছেলেটার অথবা মেয়েটার খুব মন খারাপ। সব বুঝেও মন খারাপ হবেই।

আমি তাই কখনো কাউকে জিজ্ঞেস করিনা, এবার কি কোরবানি করছেন?

হয়ত উত্তর আসবে কোরবানি দিচ্ছিনা এবার। মন টা খারাপ হবেই।

দামী জামা জীবনে অনেক কিনেছি। আবার এমন দিন ও গেছে এক জামা তিন ঈদে পড়েছি। কিন্তু কখনোই বন্ধুদের সামনে শো অফ করতাম না,

আজকাল ফেসবুকে শো অফ টা আরো বেশী। বান্ধবীর বিয়ে হয়েছে সিম্পল মধ্যবিত্ত ছেলের সাথে। সেই বান্ধবীর কাছে শিল্পপতির বউ আরেক বান্ধবী গল্প করে

দেখনা শাড়িটা আমার হাজব্যান্ড গিফট করবে। কোনটা নেবো? একটার প্রাইস সত্তর হাঁজার আরেকটার প্রাইজ পঞ্চাশ হাজার।

আবার বড়লোকের হাটুতে বুদ্ধিওয়ালা কিছু আতেল ছেলে আছে। নিজের বাপ চার লাখ টাকায় গরু কিনছে।

নিম্ন মধ্যবিত্ত বন্ধুর গরু দেখে মন্তব্য করে।

দাম কত? ত্রিশ হাজার। বেশী ছোট হয়ে গেছে।

তোমাদের অসৎ বাপকে জিজ্ঞেস করো ৫০ হাজার বেতনের সরকারি চাকরি করে কিভাবে ৫ লাখ টাকায় গরু কিনে? কত গরীবের রক্ত চুষে গায়ে তেল জমাইছে? কত গরীব কোরবানি দিতে পারেনি তোমার বাপের ঘুষের টাকা জোগাতে গিয়ে।

তোমাদের মত অসৎ টাকার গর্ব না থাকলেও এই ছোটখাট গরুতে সেই নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারটার সততার অহংকার আছে। আল্লাহ ইনশাল্লাহ তার কোরবান কবুল করে নেবেন।

ফেসবুকে নিজেদের বিলাসিতার এই শো অফ কালচার মেইনটেইন করার সময় আমরা একবারো ভাবিনা আমাদের আশেপাশের মানুষের কার কেমন লাগবে?

রিচ বয়ফ্রেন্ডকে ভাঙ্গাইয়া দামি গিফট নেয়া মেয়েটাও তার অন্য বান্ধবীর কাছে শো অফ করে

  • আইফোন এক্স। আমার বাবুটা কিনে দিয়েছে। ( হ্যাংলামির ইমো হবে)

একবারো ভাবেনা যে বান্ধবীকে বলেছে তার প্রেমিক বেকার। চাকরির খোজে পাগলপ্রায়। তাদের মত দামী রেস্টুরেন্টে চেক ইন দিতে পারেনা তারা। তার তো খারাপ লাগতে পারে এসব শুনে।

কখনো কোনো বন্ধুকে বলিনি ,তোর মোবাইলটা ভাঙ্গাচোরা। এবার পাল্টা। কারণ আমার মধ্যে এমপ্যাথি আছে। আমি জানি আপাতত সেই বন্ধুটার নতুন মোবাইল কেনার সামর্থ্য নেই।

এমপ্যাথি শব্দটা আমাদের কাছে অচেনা। নিজের টাকার শো অফ করাটাকে রাইট মনে করি।

এই যে ৩৭ লক্ষ টাকা দিয়ে যে কোটিপতি গরু কিনেছে। তাকে গিয়ে জিজ্ঞেস করেন না

  • ভাই জীবনের মানে কি?

বলতে পারবেনা। ফিলোসফিক্যাল সেন্স আমাদের ম্যাক্সিমাম কোটিপতিদের নেই।

কিছুদিন আগে বন্যা হয়ে গেলো। লক্ষ লক্ষ লোক ফসল হারিয়ে পথে বসেছে।

বাংলাদেশের কোন গ্রুপ অফ ইন্ড্রাসট্রিকে দেখেছেন, ৩৭ লক্ষ টাকা বানবাসী মানুষ কে দান করতে?

নেভার।

রতন টাটা ,বিল গেটসদের মত বিলিয়নিয়ারদের শুধুই টাকাই নেই, তাদের মধ্যে মানুষের জন্য ,মানবতার জন্য ফিলোসফিক্যাল সেন্স এবং এমপ্যাথি আছে।

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ,মেসিরা শুধু ভালো ফুটবল খেলেনা কোটি কোটি ডলার গরীবের জন্য দান করে এই হিউমেনিট্যারিয়ান এমপ্যাথি থেকে।

আর আমাদের দেশে ম্যাক্সিমাম মিলিয়নিয়ার ,সেলেব্রেটি হইল নাম্বার ওয়ান চামার। এরা না ফিলোসফিক্যালি সমৃদ্ধ না মানবতার দিক দিয়ে।

আজকে কোরবানে এরা ঠিকই বস নামে গরু কিনেছে বিশ লাখ টাকা দিয়া। ধানমন্ডি, গুলশানের প্রতিটা দামী ফ্ল্যাটের সামনে যান। এক একটা গরু বাধা লাখ টাকা দামের। বন্যার সময় এরা কই ছিলো?

আবার সামনে আসতেছে শোক দিবস। আওয়ামী লীগের নব্য কোটিপতি এম পি ,মন্ত্রীরা শোক দিবস টাকে একটা জোকে পরিণত করেছে।

এক একজন পঞ্চাশ, একশ,দুইশ গরু জবাই করে, দেড়শ গরু জবাই করে। এত টাকা পেলেন কই। বঙ্গবন্ধুর একাউন্টে মাত্র একশ তেরো টাকা ছিল। লজ্জা লাগেনা মিয়ারা?

এত কোটি কোটি টাকা শো অফে খরচ না করে চাইলেই এই টাকায় বন্যার্তদের সাহায্য করতে পারতেন। আসবেনা সে চিন্তা?

আসবে কেনো, ফিলোসফিক্যাল উইজডম যে নেই?

স্মিথসোনিয়ান ফাউন্ডেশনের নাম শুনেছেন কখনো?

বিরলা সায়েন্স ফাউন্ডেশনের?

আজ পর্যন্ত বাংলাদেশের কোন কোটিপতি ,এম পি মন্ত্রীকে দেখেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা যাতে রিসার্চ করতে পারে সেজন্য একটা বিজ্ঞানাগার তৈরী করে দিতে?

রতন টাটারা ঠিক সেটাই করে।

এমপ্যাথি জিনিসটা আমাদের থেকে নেই হয়ে যাচ্ছে। টাকার গরম বাড়ছে ,শো অফের ধরণ বাড়ছে।
একটি চরমমাত্রায় স্বার্থপর জাতিতে পরিণত হচ্ছি আমরা। চামার কোটিপতিতে ভরে যাচ্ছে দেশ।
৩৭ লক্ষ টাকা দিয়ে ক্লাস কিনছে ক্লাসলেস মিলিয়নিয়াররা।

নিজের গরুটা নিয়ে ,নিজের ড্রেস টা নিয়ে ,নিজের পোস্ট পজিশন নিয়ে,নিজের রিচ বিএফ টা নিয়ে শো অফ করার আগে আশেপাশের মানুষগুলার কথা ভাবেন?

তাদের মনের খবর নেন। যেদিন নিজের আভিজাত্যের অহংকার পাশে ঠেলে অপরের মনের খবর নিবেন ,মানুষের প্রতি এমপ্যাথি জাগাবেন সেদিনই প্রকৃত কোরবানি হবে আপনার। যে কোরবানি অহংকারের কোরবানি ,স্বার্থপরতার কোরবানি।

Leave a Reply

More News from কলাম

More News

Developed by: TechLoge

x