আপিলে হারলো যুক্তরাজ্য সরকার, কাটতে পারে বহু বাংলাদেশির ভিসা জটিলতা

Posted on by

চার ভারতীয় নাগরিকের ভিসা বাতিলের ক্ষেত্রে ব্রিটিশ অভিবাসন আইনের একটি ধারার ব্যবহারকে ‘আইনগত ত্রুটিপূর্ণ’ বলে রায় দিয়েছে যুক্তরাজ্যের আপিল আদালত। দক্ষ ভিসা ক্যাটাগরির আওতায় এই ভারতীয় পেশাজীবীদের অনির্দিষ্টকাল বসবাসজনিত ছুটি (ইনডিফিনেট লিভ টু রিমেইন-আইএলআর) বাতিল করেছিল যুক্তরাজ্য। মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) যুক্তরাজ্যের আপিল আদালত ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই সিদ্ধান্তকে ত্রুটিপূর্ণ আখ্যা দিয়েছে। ফলে একই কারণে আইএলআর বাতিল হওয়া বহু বাংলাদেশি নাগরিক আবারও যুক্তরাজ্যে বসবাসের অনুমতি পেতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে।

ব্রিটিশ অভিবাসন আইন অনুযায়ী, দেশটিতে বৈধভাবে পাঁচ বছর বসবাসের পর আইএলআর আবেদন করা যায়। সম্প্রতি দক্ষিণ এশিয়ার বেশ কয়েকটি দেশের নাগরিকদের আইএলআর বাতিল করে যুক্তরাজ্য। অভিবাসন আইনের ৩২২(৫) ধারা প্রয়োগ করে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এই ধারায় ভিসা প্রার্থীদের আচরণ ও চারিত্রিক শর্ত নির্ধারণ করা আছে। ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তরফে জানানো হয়, ‘এসব ব্যক্তি শুল্ক বিভাগে তাদের আয়ের তথ্য দেওয়ার ক্ষেত্রে অসততার আশ্রয় নিয়েছেন।’ তবে মঙ্গলবার লন্ডনের রয়্যাল কোর্ট অব জাস্টিস ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভেদ-এর এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে রায় দিয়েছে। আইএলআর বাতিল করতে যেসব ক্ষেত্রে অভিবাসন আইনের ৩২২(৫) ধারা প্রয়োগ করা হয়েছে সেগুলো পুনর্মূল্যায়নের নির্দেশ দেয় আদালত।

আপিল করা চার ভারতীয় নাগরিকের মামলা প্রসঙ্গে লর্ড জাস্টিস আন্ডারহিল-এর নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বেঞ্চের রায়ে বলা হয়, ‘চূড়ান্ত ফলাফলে এই চারটি আপিল অনুমোদন করা হলো’। ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা এড়াতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে বেশ কয়েকটি নির্দেশনাও দেয় আদালত।

চার ভারতীয় নাগরিকের আপিল অনুমোদন পেলেও বহু বাংলাদেশি পেশাজীবীর আইএলআর বাতিলের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কয়েকজন আইনপ্রণেতা বিষয়টি পার্লামেন্টেও তুলেছেন।

One Bangla

Leave a Reply

More News from আন্তর্জাতিক

More News

Developed by: TechLoge

x