ব্রেক্সিট ৩০ জুন পর্যন্ত দেরীর অনুরোধ জানিয়ে ইইউ কাছে চিঠি লিখেছেন প্রধানমন্ত্রী মে

Posted on by

যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে ব্রেক্সিটে ৩০ জুন পর্যন্ত দেরীর অনুরোধ জানিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) কাছে চিঠি লিখেছেন। ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাস্কের কাছে শুক্রবার মে এ চিঠি লেখেন।

তবে ২৩ মে’র ইউরোপীয় পার্লামেন্ট নির্বাচন এড়াতে ওই সময়ের আগেই ইইউ থেকে যুক্তরাজ্যের বিচ্ছেদ (ব্রেক্সিট) সম্পন্ন করা তার লক্ষ্য বলেও মে জানিয়েছেন।

ওদিকে, ইইউ এর কর্মকর্তা ইঙ্গিত দিয়ে বলেছেন, ইইউ নেতাদের চেয়ারম্যান ডোনাল্ড টাস্ক ব্রেক্সিটে আরো দেরীতেও সায় দিতে পারেন। বিবাদমান ব্রিটিশ রাজনীতিবিদদেরকে একটি ব্রেক্সিট পরিকল্পনা অনুমোদনের সময় দেওয়ার জন্য সময় আরো একবছর পর্যন্ত বাড়াতে পারেন টাস্ক। বর্তমান সময় অনুযায়ী ১২ এপ্রিলেই ব্রেক্সিট সম্পন্ন করার সময়সীমা রয়েছে। ব্রিটিশ এমপি’রা এখনো ব্রেক্সিট চুক্তি অনুমোদন করতে পারেননি।

এখন এমপি’রা ঠিক সময়মত চুক্তি অনুমোদন করতে পারলে যুক্তরাজ্য ইউরোপীয় পার্লামেন্টে নির্বাচনের আগেই ব্রেক্সিট সম্পন্ন করতে পারবে। আর চুক্তি অনুমোদনে ব্যর্থ হলে যুক্তরাজ্যকে ইইউ নির্বাচনে অংশ নিতে হবে।

ব্রেক্সিটের বাড়তি সময়ের প্রশ্নে ইইউ নেতাদেরকেও একমত হতে হবে। ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট টাস্ক ব্রেক্সিটের সময় ১২ মাস বাড়ানোর প্রস্তাব করবেন। আর এ সময়ের আগে ব্রিটিশ পার্লামেন্ট ব্রেক্সিট চুক্তি অনুমোদন করে ফেললে সে সময় কমিয়ে আনারও পথ খোলা রাখা হবে তার প্রস্তাবে।

কিন্তু টাস্কের এ প্রস্তাব আগামী সপ্তাহে ইইউ নেতাদেরকে সর্বসম্মতভাবে গ্রহণ করতে হবে। বিবিসি’র ইউরোপ বিষয়ক সংবাদদাতাকে এমন কথাই জানিয়েছেন ঊর্ধ্বতন এক ইইউ কর্মকর্তা।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী মে বুধবারের বৈঠকের আগেই ব্রেক্সিটের সময় বাড়ানোর অনুরোধ জানানোর জন্য ডোনাল্ড টাস্ককে চিঠি লিখেছেন। চিঠিতে তিনি ৩০ জুন ২০১৯ পর্যন্ত সময় চেয়েছেন। কিন্তু ফ্রান্স এখনো সময় বাড়াতে রাজি না থাকার ইঙ্গিত দিয়েছে। ব্রেক্সিটের সময় বাড়ানোর যৌক্তিকতা তুলে ধরে যুক্তরাজ্য একটি পরিষ্কার পরিকল্পনা পেশ না করা পর্যন্ত ফ্রান্স এতে রাজি নয় বলে জানিয়েছে।

ব্রেক্সিটের সময় বাড়ানোর বিষয়টিতে ২৭ টি ইইউ দেশেরই সম্মতি থাকতে হবে। ফ্রান্স সময় বাড়ানোতে আগ্রহ না দেখালেও অন্যান্য ইউরোপীয় রাজনীতিবিদরা যুক্তরাজ্যকে আরো ভাবনা-চিন্তার জন্য সময় দিতে রাজি থাকারই ইঙ্গিত দিয়েছেন।
সূত্র: বিডিনিউজ

More News from আন্তর্জাতিক

More News

Developed by: TechLoge

x