টেরিজা মে আগাম নির্বাচনের ডাক দিতে পারেন-সানডে টাইমস

Posted on by

নিউজ লাইফ লন্ডন ডেস্ক : ইইউ থেকে বৃটেনের প্রস্থান প্রশ্নে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে কোনো চুক্তি পাস করাতে না পারলে প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে‘র সরকার ‘ভেঙে’ পড়তে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে। এরই মধ্যে গুঞ্জন উঠেছে, তিনি হয়তো আগাম নির্বাচনের ডাক দিতে পারেন। যুক্তরাজ্যের সংবাদপত্র সানডে টাইমস-এর এক খবরে এ দাবি করা হয়েছে। সানডে টাইমস-এর খবরে আরও দাবি করা হয়েছে, মে চুক্তি ছাড়া বেক্সিটের সিদ্ধান্ত নিলে তাঁর সরকারের ইইউ-পন্থী ছয়জন জ্যেষ্ঠ মন্ত্রী পদত্যাগ করতে পারেন। আবার ব্রেক্সিটপন্থীদের হুমকির মুখেও আছেন মে। দীর্ঘ দিনের জন্য ব্রেক্সিট ঝুলে গেলে তাঁরা পদত্যাগ করতে পারেন।


ব্রিটিশ পার্লামেন্টে গত মঙ্গলবার চতুর্থ দফায় টেরিজা মের ব্রেক্সিট চুক্তির ওপর ভোট হয়। কিন্তু ওই ভোটেও তিনি ব্যর্থ হন। এ নিয়ে ব্রেক্সিট চুক্তি পার্লামেন্টে চারবার প্রত্যাখ্যাত হলো। যুক্তরাজ্যের আরেক পত্রিকা দ্য মেইল-এর খবরে বলা হয়েছে, আবারো ব্রেক্সিট চুক্তি এবং এর বিকল্প প্রস্তাবের ওপর ভোট অনুষ্ঠিত হতে পারে। এই ভোটে চুক্তি পাস না করাতে পারলে টেরিজা মে আগাম নির্বাচনের জন্য ডাক দেবেন কি না, তা নিয়ে তাঁর উপদেষ্টাদের মধ্যে বিভক্তি দেখা দিয়েছে।

এদিকে, ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে সদস্য দেশের বেরিয়ে যাওয়ার প্রক্রিয়া ‘অনুচ্ছেদ-৫০’ বাতিল চেয়ে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের ওয়েবসাইটে দায়ের করার পিটিশনে স্বাক্ষরের সংখ্যা ৬০ লাখ ছাড়িয়েছে। সোমবার পিটিশনের দাবি নিয়ে পার্লামেন্টে বিতর্ক করেন এমপিরা।
রবিবারই এই পিটিশনের স্বাক্ষরের পরিমাণ ৫০ লাখ ছাড়িয়েছিলো। যা এই পর্যন্ত ব্রিটিশ পার্লামেন্টের ওয়েবসাইটে সবচেয়ে জনপ্রিয় পিটিশন। এর আগে ২০১৬ সালে দ্বিতীয় গণভোটের দাবিতে তোলা পিটিশনে স্বাক্ষরের পরিমাণ ছিলো ৪১ লাখ ৫০ হাজার ২৬০। পিটিশন উত্থাপন করা মার্গারেট জিওরগিয়াদো বলেছেন, তাকে কয়েকবার হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে। তিনি আরো বলেছেন, হয়রানি ও উপর্যুপরি হুমকির কারণে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলতে বাধ্য হয়েছেন তিনি। এর আগে ২৬ মার্চ সরকার এই পিটিশনের উত্তরে জানায়, অনুচ্ছেদ ৫০ রিবুক করা হবে না।

More News from আন্তর্জাতিক

More News

Developed by: TechLoge

x