হাউজ বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউট বিল পাস

Posted on by

নিউজ লাইফ ডেস্কঃ হাউজ বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউট আইন,২০১৮ বিল জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে।

সোমবার জাতীয় সংসদে বিলটি উত্থাপন করেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন।স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন।বর্তমানে ‘হাউজ বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউট অর্ডিন্যান্স-১৯৭৭’ অনুযায়ী হাউজ বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউট পরিচালিত হচ্ছে।উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী সামরিক সরকারের অধ্যাদেশগুলো আইনে পরিণত করার ও বাংলা ভার্সনে প্রণয়নের বাধ্যবাধকতা রয়েছে।এরই পরিপ্রেক্ষিতে সরকার ৩০ বছর আগের এই অধ্যাদেশটিকে আইনে পরিণত করা উদ্যোগ নিয়েছে।

প্রস্তাবিত এই আইনের তিন ধারায় অর্ডিন্যান্সের অধীনে থাকা হাউজ বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউটের ধারাবাহিকতা রাখা হয়েছে।ইনস্টিটিউটের পরিচালনা ও প্রশাসনের দায়িত্ব একটি পরিচালনা পর্ষদের ওপর ন্যাস্ত থাকবে।৬ নম্বর ধারায় ‘ইনস্টিটিউটের কার্যাবলী’ অংশে ইমারত নকশা প্রণয়ন ও নির্মাণ,নির্মাণ উপকরণ-শিল্প এবং মানববসতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সমস্যার ওপর কারিগরি ও বৈজ্ঞানিক অনুসন্ধান এবং গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা করবে। সেই সঙ্গে দেশজ নির্মাণ উপকরণের প্রাপ্যতা,উন্নয়ন ও ব্যবহার এবং পরিবেশবান্ধব নির্মাণ উপকরণের উন্নয়নে গবেষণা পরিচালনা করবে ইনস্টিটিউট।

এছাড়া,দুর্যোগসহনীয়,আধুনিক,টেকসই নতুন উপকরণের বিষয়ে যৌথ সমীক্ষা পরিচালনা ও গবেষণা কার্যক্রম গ্রহণ করবে রিসার্চ ইনস্টিটিউট।প্রস্তাবিত আইনের ৭ ধারা অনুযায়ী একটি পরিচালনা পর্ষদ থাকবে।পর্ষদে ২১ জন সদস্য থাকবেন।এর মধ্যে গৃহায়ণমন্ত্রী পর্ষদের চেয়ারম্যান এবং সচিব পদাধিকার বলে ভাইস চেয়ারম্যান হবেন। তবে মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রী বা উপমন্ত্রী থাকলে তিনিই ভাইস চেয়ারম্যান হবেন এবং সচিব সদস্য হিসেবে থাকবেন।

প্রস্তাবিত আইনের ১২ ধারায় হাউজ বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউটের একজন মহাপরিচালকের পদ রয়েছে।সরকার গৃহায়ণ ও ইমারত নির্মাণ সংক্রান্ত বিষয়ে অভিজ্ঞতাসম্পন্ন ব্যাক্তিগণের মধ্য থেকে নির্ধারিত শর্তসাপেক্ষে মহাপরিচালক নিয়োগ দেবে।

১৭ ধারায় ইনস্টিটিউটের তহবিলের বিষয় বলা হয়েছে,সরকার,ব্যক্তি,সংস্থা বা স্থানীয় কোনো কর্তৃপক্ষ তহবিলে অর্থ দিতে পারবন।তবে,বিদেশী সংস্থার কাছ থেকে তহবিল সংগ্রহ করলে সরকারের অনুমতি নিতে হবে।আইনের উদ্দেশ্য ও কারণসম্বলিত বিবৃতিতে গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন,‘হাউজ বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউট আইন,২০১৮’ প্রণীত ও বাস্তবায়িত হলে পরিবেশবান্ধব,দুর্যোগসহনীয়,ব্যয়সাশ্রয়ী ও ব্যাপক জনগোষ্ঠীর ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে সকলের জন্য আবাসন সহজলভ্য করার স্বার্থে সুপরিকল্পিত উন্নয়ন নিশ্চিত করা যাবে।

মোশাররফ হোসেন বলেন,গবেষণা ও পরীক্ষার মাধ্যমে গৃহায়ণ ও নির্মাণ ক্ষেত্রে যুগোপযোগী জ্ঞান আহরণ,দেশীয় নির্মাণ উপকরণের সর্বোত্তম ব্যবহার এবং পরিবেশবান্ধব দুর্যোগসহনীয় সাশ্রয়ী আবাসন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ১৯৭৫ সালের ১৩ জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তৎকালীন গণপূর্ত ও নগর উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের অধীন ‘হাউজ বিল্ডিং রিসার্চ সেন্টার প্রকল্প’ অনুমোদন করেন।

মন্ত্রী জানান,পরবর্তী সময়ে প্রকল্পের ব্যাপ্তি বিবেচনা করে ১৯৭৭ সালের ১৬ অক্টোবর ‘হাউজ বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউট অর্ডিন্যান্স,১৯৭৭’ জারি করা হয়।সম্প্রতি মন্ত্রিসভার বৈঠকে গৃহীত সিদ্ধান্তের আলোকে অধ্যাদেশটি সংশোধন ও পরিমার্জন করে নতুন আইন আকারে বাংলা ভাষায় প্রণয়ন করা হয়।নিয়ম অনুযায়ী বিলটি রাষ্ট্রপতির সম্মতির পর আইনে পরিণত হবে।

More News from বাংলাদেশ

More News

Developed by: TechLoge

x