টেরিজা মে‘কে হত্যা পরিকল্পনার অভিযোগে অভিযুক্ত ব্রিটিশ বাংলাদেশী

Posted on by

লন্ডন : ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে বোমা হামলা এবং প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে‘কে ছুরিকাঘাতে হত্যার চক্রান্ত করার জন্য অভিযুক্ত হয়েছেন এক ব্রিটিশ বাংলাদেশী। নাইমুর রহমান নামে ২০ বছর বয়সী এই যুবক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট আইএস দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে এ ধরনের হামলা চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিল। মঙ্গলবার ওল্ড বেইলি আদালতে তার বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ আনা হয়। এসময় মোহাম্মদ ইমরান নামে আরেক ব্রিটিশ বাংলাদেশীকে আইএসে যোগ দেওয়ার পরিকল্পনার অভিযোগে আদালতে হাজির করা হয়।


প্রসিকিউটর মার্ক হেইউড কিউসি অভিযোগ করেন, গত বছর ২৮ অক্টোবর নাইমুর ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় টেন ডাউনিং স্ট্রিটের গেইটে বোমা হামলার পরিকল্পনা করে। একই সাথে প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে‘কে ছুরি দিয়ে আঘাত করে হত্যার পরিকল্পনাও করা হয়। এ লক্ষ্যে নাইমুর তার কোট এবং কাধের ব্যাগ নতুন করে ডিজাইন করে তাতে বিস্ফোরক রাখে।

সন্ত্রাসবাদে জড়িত হতে পারে এমন তরুণদের নজরদারীতে রাখা এবং সহায়তার লক্ষ্যে ব্রিটিশ সরকারের পরিচালিত চ্যানেল কর্মসূচীর আওতায় ছিল নাইমুর। পরবর্তীতে সে এই কর্মসূচীতে সহযোগীতা করতে অস্বীকৃতি জানায়। আদালতে বলা হয়, ব্রিটিশ গোয়েন্দা সংস্থা এমআইফাইভের এক ছদ্মবেশি গোয়েন্দা আইএসের উর্ধ্বতন কমান্ডার সেজে নাইমুরের সাথে যোগাযোগ শুরু করেন। টেলিগ্রাম চ্যাট ব্যবহার করে ঐ গোয়েন্দা কর্মকর্তাকে নাইমুর অনুরোধ করে তাকে আইএসের কোন স্লিপার সেলে যত দ্রুত সম্ভব যাতে ঢুকানো হয়। এরপর সে তার পরিকল্পনার বিস্তারিত তুলে ধরে। এসময় নাইমুর জানায়,“ আমি পার্লামেন্টে আত্মঘাতী বোমা হামলা চালাতে চায়। আমি টেরিজা মে‘কে হত্যার চেষ্টা করতে চায়।“ নাইমুর পার্লামেন্টে আত্মঘাতী ভেস্ট পরে হামলা চালিয়ে প্রধানমন্ত্রীসহ সকলকে হত্যার পরিকল্পনার কথাও জানায় ঐ ছদ্মবেশী গোয়েন্দা কমকর্তাকে। সে ম্যানচেস্টার এরিনাতে বোমা হামলাকারীতে ধন্যবাদ দেয় বলে অভিযোগ করেন প্রসিকিউশন।
নর্থ লন্ডনের ফিন্সলের বাসিন্দা নাইমুর এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে। অন্যদিকে বামির্ংহামের বাসিন্দা ইমরানও তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছে। আদালতে শুনানী অব্যাহত রয়েছে।

More News from আন্তর্জাতিক

More News

Developed by: TechLoge

x