মেগা প্রজেক্টের নামে এখন মেগা লুটপাট চলছে: মঈন খান

Posted on by

নিউজ লাইফ ডেস্কঃ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড.আব্দুল মঈন খান বলেছেন,আজকে মেগা প্রজেক্ট নেয়া হচ্ছে। যদি ১০০ কোটি টাকার প্রজেক্টের প্রস্তাব নিয়ে যাওয়া হয়,তারা বলে ১০০ কোটি টাকায় কি হয়, এটাকে ১০০০ কোটি টাকা বানাও।তখন বাকি টাকা লুটপাট করা হয়। আমি বলি মেগা প্রজেক্টের নামে এখন মেগা লুটপাট চলছে।’

শিক্ষক-কর্মচারী ঐক্যজোটের আয়োজনে ‘গণতন্ত্র ও আইনের শাসনের অভাবে বিপর্যস্ত শিক্ষা ব্যবস্থা’ শীর্ষক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

আব্দুল মঈন খান বলেন, ‘বাজেটের আকার বড় নাকি ছোট সেটা দিয়ে বিচার করলে হবে না। টাকা কোন খাতে কিভাবে ব্যয় হচ্ছে সেটা বিবেচনায় নিতে হবে। আজকে তারা বলে আমরা নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু করছি। অথচ এই পদ্মা সেতুর প্রকল্প প্রস্তাব যখন প্রথম জমা দেয়া হয় তখন সেটার পরিমাণ ছিল সাড়ে ৮ হাজার কোটি টাকা। এখন সেই প্রকল্পের পরিমাণ বেড়ে হয়েছে ৩৫ হাজার কোটি টাকা। এই প্রকল্প শেষ হতে এটা বেড়ে অন্তত ৫০ হাজার কোটি টাকা হয়ে যাবে। বাকি টাকা কার পকেটে গিয়েছে?’

বাজেটে শিক্ষাকে অবহেলা করা হয়েছে উল্লেখ করে মঈন খান বলেন, ‘আমরা ১৯৯১-৯৬ ও ২০০১-০৬ মেয়াদে ক্ষমতায় থাকার সময় শিক্ষা খাতে সর্বোচ্চ বরাদ্দ দিয়েছি। অথচ এই সরকার শিক্ষা খাতকে সবসময় অবহেলা করেছে। এবারও বাজেটে শিক্ষা খাতে বরাদ্দ দুই শতাংশ কমিয়ে দেয়া হয়েছে। শিক্ষাকে পণ্য করে দেয়া হয়েছে।’

পরীক্ষায় নকলের প্রসঙ্গ তুলে ধরে বিএনপির এই শীর্ষ নেতা বলেন, ‘যে সরকার নকলবাজিকে প্রমোট করে তারা আর এই দেশকে কী উন্নতির দিকে নিয়ে যাবে। অথচ তারা বলে দেশ নাকি উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে।’

বর্তমান সরকারকে অনির্বাচিত-অবৈধ দাবি করে মঈন খান বলেন, ‘এই সরকারের ১৫৪ জন সংসদ সদস্য বিনাভোটে নির্বাচিত। বাকি ১৪৬ জনও মাত্র ৫ শতাংশ মানুষের ভোটে নির্বাচিত। সেই সরকারের বাজেট দেয়ার কোনও অধিকার নেই। এই সরকার জনগণের প্রতিনিধিত্ব করে না।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি অধ্যক্ষ সেলিম ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক ও ডাকসুর সাবেক ভিপি মাহমুদুর রহমান মান্না। অনুষ্ঠানে সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

More News from বাংলাদেশ

More News

Developed by: TechLoge

x