তরুণীদের অন্যতম পছন্দ ডাবল ও ট্রিপল লেয়ারিং স্যালোয়ার কামিজ

Posted on by

ঈদ বাজার

নিউস লাইফ ডেস্ক :: একটি করে দিন যায় আর এগিয়ে আসে ঈদের সেই কাক্সিক্ষত দিনটি। উৎসব-আনন্দের উচ্ছ্বাসে মাাখা ঈদুল ফিতর। ঈদ মানেই তো নতুন পোশাক। ঈদের আনন্দ অনেকটাই ফিঁকে হয়ে যায় মন মতো নতুন পোশাক না পেলে। রোজার শেষ সময়ে তাই দোকানগুলোতে ভিড় লেগেছে ক্রেতাদের। তবে সবথেকে বেশী ভিড় নারীদের পোশাকের দোকানে। সময় নিয়ে বেছে বেছে কাপড় কেনা। কাপড়ের সাথে আবার যুক্ত করে অন্যান্য প্রাসাধনী কিনতে তাই মেয়েদের যেন সময় নেই। নানা রং-ঢং ও আকার-আকৃতির বৈচিত্র্যে তৈরি হয় নতুন সব পোশাক। ফ্যাশনে যুক্ত হয় নতুন ট্রেন্ড।
হালের ফ্যাশনে তরুণীদের মনে জায়গা করে নিয়েছে বিদেশী থ্রী-পিসের পাশাপাশি দেশী তৈরি নানা রকমের কাপড়। আবহাওয়ার বৈচিত্রতার সাথে সাথে পোশাকেও যে ভিন্নতা আসতে পারে সেটা বোঝা যায় নারীদের পছন্দের পোশাক বাছাই করার মধ্য দিয়ে।
বাজার ঘুরে দেখা গেল, ঈদের পোশাকে বৈচিত্র্যময় নকশার পাশাপাশি কাপড়ের বুনন ও রঙের ক্ষেত্রে আবহাওয়ার বিষয়টিও মাথায় রেখেছেন ডিজাইনাররা। বেশির ভাগ পোশাকের ফেব্রিক সুতি ও লিনেন। পোশাকের রঙের ক্ষেত্রে ডিজাইনাররা হালকা শেডগুলোকে প্রাধান্য দিয়েছেন। বর্ষার কারণে রঙের ক্ষেত্রে নীলের আধিপত্য থাকছে। এর পাশাপাশি আছে সবুজ, আসমানি ও ম্যাজেন্ডার মতো রং। গরমের বিষয়টি মাথায় রেখেই লুজ ফিটেড পোশাকের প্রতি আগ্রহ ক্রেতাদের।
গতানুগতিক সালোয়ার কামিজ ছাড়াও অনেকেই পরছেন প্যাটার্ন ভিন্নতার পোশাক। ফেব্রিক ভেরিয়েশনের পাশাপাশি এতে থাকছে প্রাচীন ভারতীয় ও মরোক্কান ঐতিহ্যের ছোঁয়া। কামিজের ঘের হচ্ছে নানা রকম। কোনটায় বড় কোনটায় ছোট ঘের। এছাড়াও থাকছে বিভিন্ন ডিজাইনের ফতুয়া ও টপস। দোকান ভেদে এসব লনের দাম উঠানামা করেছে ১২০০-৪০০০ টাকার মধ্যে। ঈদের বাজারে এবারও সালোয়ার হিসেবে নারীদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে “পেলাজো” বা চওড়া মুহুরির স্যালোয়ার। এছাড়াও হুররম, শিপন, পাগলু, ওয়ারা, সফট শিল্ক, সুতির থ্রি-পিস ও নকশিকাঁথার ডিজাইনের চাহিদা বেশী। চুড়িদারের চাহিদা ইদানীং তুলনামূলক কম। ব্লকের স্যালোয়ার কামিজগুলোও এবার বেশ চলছে। ডিজাইনেও এসেছে নতুনত্ব। ঈদে রেডিমেট পোশাকের বাজার বরাবরের মতোই দখল করে রেখেছে ভারতীয় সালোয়ার-কামিজ আর লেহেঙ্গা। ভারত থেকে আসা গাউন ধরনের পোশাক মেয়েরা ইদানীং বেশ পছন্দ করছে।
নগরীর নিউ মার্কেটে কাপড় কিনতে আসা খুবি শিক্ষার্থী কানিজ ফাতেমা বলেন, সময় আর আবহাওয়ার সাথে তাল মিলিয়ে পোশাক কিনতে হচ্ছে। গরম এবং ভ্যাপসা গরমের কারণে সুতি কাপড়ই প্রথম পছন্দ। তবে এবার টু’ইন ওয়ান স্যালোয়ার কামিজ বেশি চলছে বলে তিনি দাবি করেন।
ফ্যাশন হাউজের মালিক সাব্বির হোসেন বলেন, বেচা কেনা ভালই চলছে। ভারতীয় পোশাকের পাশাপাশি দেশী সুতির স্যালোয়ারের চাহিদা বেশী। তবে শেষ সপ্তাহে এই বিকিকিনির আরও বাড়বে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।
ফ্যাশন হাউজগুলোতে বৈচিত্র্যের পসরা ঃ ঈদকে কেন্দ্র করে পোশাকে অত্যধিক চাকচিক্য এড়িয়েই পছন্দের ঈদ পোশাক বেছে নিচ্ছে অনেক তরুণী। এবার ঈদে কাপড় ও কাটিং বৈচিত্র্য নিয়ে ঈদের পোশাক এনেছে আড়ং, সেইলর, ক্যাটস আই, এক্সট্যাসি, ইনফিনিটি, গ্রামীণ ইউনিক্লো, অঞ্জন’স, ইয়োলো, জেন্টল পার্ক, আইকনিক ফ্যাশন গ্যারেজসহ বিভিন্ন দেশি লাইফস্টাইল ব্র্যান্ড। আর ঈদকে কেন্দ্র করে নতুন নতুন ডিজাইনের পোশাকই এনেছে ব্র্যান্ড প্রতিষ্ঠানগুলো।

More News from কমিউনিটি

More News

Developed by: TechLoge

x