মালয়েশিয়ার মতোই বাংলাদেশের মানুষ খালেদা জিয়াকে প্রধানমন্ত্রী বানাবে: মির্জা ফখরুল

Posted on by

ইউএনএন বিডি নিউজঃ মালয়েশিয়ায় সাধারণ নির্বাচনে জিতে মাহাথির মোহাম্মদের আবার প্রধানমন্ত্রী হওয়ায় স্বপ্নে ভাসছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তার মনে বিশ্বাস জেগেছে মালয়েশিয়ার মতোই বাংলাদেশের মানুষও খালেদা জিয়াকে এভাবে প্রধানমন্ত্রী বানাবে।

শুক্রবার নয়াপল্টনে বিএনপি কার্যালয়ের নিচতলায় দলের চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক জীবনের ৩৪ বছরের ৯২টি ছবি নিয়ে এক প্রদর্শনীতে এমন মন্তব্য দলের মহাসচিব।

টানা ২২ বছর প্রধানমন্ত্রী থাকার পর ২০০৩ সালে ক্ষমতা ছেড়ে দেয়া মালয়েশিয় নেতা মাহাথির মোহাম্মদ আবারও দেশটির প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন ৯ মের ভোটে জিতে। মাহাথিরের সাবেক দলের ৬১ বছরের শাসনের অবসান ঘটেছে এবারের নির্বাচনে। আর নিজের সাবেক দলের বিরুদ্ধে গঠন হওয়া জোটে যোগ দেন মাহাথির।

মালয়েশিয়ার নির্বাচনে জনমত প্রতিষ্ঠিত হয়েছে মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘গণতন্ত্রের বাইরে চলে গেলে সকল শক্তি দিয়েও জনমতকে প্রতিহত করা যায় না। মালেশিয়ার নির্বাচন সেটাই প্রমাণ করেছে।একইভাবে বাংলাদেশে গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে এনে কারাবন্দী চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে দেশের নেতৃত্বে বসানোর আহ্বানও জানান ফখরুল।

অনুষ্ঠানে দলীয় চেয়ারপারসনের স্তূতিতে মাতেন বিএনপি মহাসচিব। বলেন, ‘রাজনৈতিক পরিবেশর বাইরে বেড়ে ওঠা একজন ব্যক্তি বর্তমানে শুধু একজন নেতাই নন বা বিএনপির চেয়ারপারসন নন অথবা সাবেক প্রধানমন্ত্রী নন, তিনি গণতন্ত্রের একটি প্রতিষ্ঠান এবং জীবন্ত কিংবদন্তী।’গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায়’ খালেদা জিয়ার অবদানের কারণে তার নাম ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে বলেও মনে করেন ফখরুল।

‘আমাদের দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া তার স্বামী বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মৃত্যুর পর একজন সাধারণ কর্মী হিসেবে বিএনপিতে যোগ দিয়েছেন, দলের দায়িত্ব নিয়েছেন। আর এই দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই তিনি ছুটে চলেছেন, পিছনে ফিরে তাকাননি।’

‘গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় মানুষের ডাকে, দেশের প্রয়োজনে লড়াই কী করে হয়ে এবং কীভাবে করে তা তিনি দেখিয়েছেন। সামনে তার একটাই লক্ষ্য, দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা।’

‘তিনি গণতন্ত্রকেই শুধু রক্ষা করার জন্য সংগ্রাম করেননি। তিনি বাংলাদেশকে নির্মাণ করার জন্য সংগ্রাম করেছেন। দেশের উন্নয়ন, অর্থনৈতিক উন্নয়ন, নারী শিক্ষায় অবৈতনিকসহ তার কাজগুলো যে কতাটা গুরুত্বপূর্ণ, যারা রাষ্ট্র নির্মাণ করেন তারাই বলতে পারবেন।’

খালেদা জিয়ার ওপর বই লেখা হচ্ছে জানিয়ে ফখরুল বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি, তার আত্মজীবনিতে আমরা এমন কিছু কিছু বিষয় পাব, যা আমরা কেউই জানি না।’

শেখ হাসিনাকে ‘তথাকথিত সরকারের প্রধানমন্ত্রী’ আখ্যা দেন ফখরুল। বলেন, ‘অবৈধ প্রধানমন্ত্রী আমাদের নেত্রীকে ছোট করবার চেষ্টা করেন।’

হাইকোর্টে খালেদা জিয়ার জামিনের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে শুনানি নজিরবিহীন বলেও মন্তব্য করেন ফখরুল। বলেন, ‘বাংলাদেশে একমাত্র খালেদা জিয়াই, যার জামিন হাইকোর্ট থেকে দেয়ার পরও সুপ্রিম কোর্টের আপিল ডিভিশন তা স্থগিত করে সেটার ওপর শুনানি করছে।’

‘এমন একটি কেস বা মামলাও নেই যেখানে হাইকোর্ট থেকে জামিন দেয়ার পরও সুপ্রিমকোর্ট কাউকে আটকে রেখেছে।’

‘আজকে তিনি (খালেদা জিয়া) কারাগারে। কেনো কারাগারে আমরা সবাই জানি। একটি মিথ্যা মামলা দিয়ে তাকে রাজনীতি থেকে দূরে সরিয়ে দেয়ার জন্য। বেগম জিয়াকে নিয়ে সরকারের গোটা কার্যক্রমই ষড়যন্ত্র।’

More News from বাংলাদেশ

More News

Developed by: TechLoge

x