দুই সিটিতে ক্ষমতাসীনদের বৈধ ও অবৈধ অস্ত্রের ছড়াছড়ি: রিজভী

Posted on by

ইউএনএন বিডি নিউজঃ আসন্ন গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করতে ব্যর্থ হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, ‘নির্বাচনি প্রচারণা শুরু হলেও দুই সিটিতে ক্ষমতাসীনদের বৈধ ও অবৈধ অস্ত্রের ছড়াছড়ি। সন্ত্রাসীরা এলাকায় এলাকায় দাবড়ে বেড়াচ্ছে, কিন্তু নির্বাচন কমিশন কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না।’

রবিবার (২৯ এপ্রিল) দুপুরে নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, ‘দুই সিটিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর বিরুদ্ধে কালো টাকা ছড়ানোর অভিযোগ এবং প্রতিনিয়ত আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ ইসিতে জমা দিলেও নির্বাচন কমিশন অন্ধের ভূমিকা পালন করছে।’

দুই সিটিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে বলে দাবি করেন রিজভী। তিনি বলেন, ‘শুধু তাই নয়, বিএনপির নেতাকর্মীদের ক্রসফায়ারের ভয় দেখানো হচ্ছে। এছাড়া তাদের বিনা কারণে গ্রেফতার করছে পুলিশ। গত দু’দিন আগে গাজীপুর জেলা জামায়াতের আমির অধ্যক্ষ এসএম সানাউল্লাহসহ ৪৫ জন নেতাকর্মীকে ২০ দলীয় জোটপ্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকারের পক্ষে নির্বাচনি প্রচারণার সময় গ্রেফতার করা হয়েছে।’

গাজীপুরের পুলিশ এখন ‘ভয়ঙ্কর’ আতঙ্কের নাম বলে মনে করেন বিএনপির এই যুগ্ম মহাসচিব। তিনি বলেন, ‘এ আতঙ্কের মহানায়ক হচ্ছে এসপি হারুন। যার হাতে বিরোধী দলের এমপি থেকে শুরু করে তৃণমূলের কর্মী পর্যন্ত নিপীড়ন নির্যাতন ও আর্থিক শোষণের শিকার হয়েছে। আমি অবিলম্বে গাজীপুরের এসপি হারুনের প্রত্যাহার দাবি করছি।’

এ সময় দুই সিটিতে নির্বাচনের সাত দিন আগে সেনা মোতায়েনের দাবি জানান রিজভী।

প্রধানমন্ত্রীর একজন উপ-প্রেস সচিবের ফেসবুক আইডিতে বিএনপির নামে নানা মিথ্যা ও বানোয়াট গল্প বানিয়ে প্রচার করছে দাবি করে রিজভী বলেন, ‘যারা কুরুচিসম্পন্ন এবং অপরাজনীতি চর্চা করে তারাই কেবল অসত্য ও নোংরা রাজনীতির আশ্রয় নেয়।’

স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুকে রিমান্ডে নিয়ে গত দুদিন ধরে নির্যাতন চালানো হচ্ছে বলে রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, ‘তার ওপর এ নির্যাতন আন্দোলনরত তরুণদের ভয় পাইয়ে দিতে সরকারের একটি অপকৌশল।’

More News from বাংলাদেশ

More News

Developed by: TechLoge

x