এটা অন্ধ বোবার দেশ না : কামাল হোসেন

Posted on by

ইউএনএন বিডি নিউজঃ জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার আহ্বায়ক সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল হোসেন বলেছেন, এটা অন্ধ বোবার দেশ না। যারা দেশকে দেউলিয়া বানিয়েছে তাদের বিচার এদেশে হবেই। তারা যত তাড়াতাড়ি সড়বে ততই দেশের মঙ্গল।

শুক্রবার বিকালে রাজধানীর গুলিস্তানস্ত মহানগর নাট্যমঞ্চে ‘বাংলাদেশের সংবিধানে বিধৃত আকাঙ্খা বিদ্যমান পরিস্থিতি ও করণীয়’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন ড. কামাল হোসেন।

তিনি বলেন, সময় থাকতে জনগণকে তাদের ক্ষমতা ভোগ করার ব্যবস্থা করে দিন। তিনি বলেন, আসুন জনগণের ক্ষমতা পুনরদ্ধার করি। পৃথিবীর কোনো দেশে একসাথে সরকারি ও বিরোধী দল ক্ষমতায় নেই। যারা সরকারে থাকে তারা আবার কি করে বিরোধী দল হয়ে যায়? তিনি বলেন, কোন স্বৈরাচার চিরস্থায়ী নয়। স্বৈরাচারের পতন হবে হবেই। তিনি বলেন, তথাকথিত সংসদ সদস্য হিসাবে আমাদের ওপর যাদের চাপিয়ে দিচ্ছে এটা দেখে বসে থাকার চেয়ে মরে যাওয়া ভালো।

এই আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেছেন তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক ইঞ্জিনিয়ার শেখ মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক রাষ্ট্রপতি অধ্যাপক ডা. এ.কিউ.এম. বদরুদ্দোজা চৌধুরী।

বি চৌধুরী বলেন, দেশে কোন মানবাধিকার নেই। স্বার্বভোমত্ব বিপন্ন। দুর্নীতিগ্রস্থ দেশকে রক্ষা করতে হলে সৎ রাজনৈতিক নেতৃত্ব প্রয়োজন। আগামীতে যারা ক্ষমতায় আসবে তাদের কেবল নিজেদের নয়, দলকে দুর্নীতিমুক্ত করতে হবে। তিনি বলেন, আগামীতে এটাই চ্যালেঞ্জ হবে।

একই অনুষ্ঠানে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন বলেন, দলীয় সরকার আর সংসদ বহাল রেখে নির্বাচন হবে না। তিনি বলেন, আগামীতে রাজনীতিতে ব্যক্তিস্বার্থ বলে কিছু থাকবে না। আমরা আন্দোলন সংগ্রাম আর রক্ত দিয়ে দেশে গনঘন্ত্র আনবো আর তারা কতিপয় লোক ব্যক্তি স্বার্থে রাষ্ট্র পরিচালিত করবে- সেটা হতে পারে না।বঙ্গবীর আব্দুল কাদের সিদ্দিকী বলেন, যারা কোটা সংস্কারে আন্দোলনতারীদের রাজাকার বলেছে তারা পুরো দেশটাকেই রাজাকার বলেছে। তিনি বলেন, যারা আইন মানবে দেশ তাদের অধীনেই থাকতে হবে।ডাকসু’র সাবেক ভিপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা হচ্ছে গণতন্ত্র। তিনি বলেন, এসরকার নিজেদেরকে মুক্তিযুদ্ধের সরকার পরিচয় করিয়ে দিলে গ্রামে-গঞ্জে এদেরকে মুক্তিযুদ্ধের যাতনার সরকার বলে ডাকা হচ্ছে।বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলে, ২০১৪’র মত নির্বাচন করা হলে আওয়ামী লীগের বিয়োগান্ত পরিণতি হবে।

More News from বাংলাদেশ

More News

Developed by: TechLoge

x