হাওর না বাঁচলে দেশ বাঁচবে না: নজরুল ইসলাম খান

Posted on by

ইউএনএন বিডি নিউজঃ অপরিকল্পিত রাস্তাঘাট নির্মাণ ও প্রকল্পের নামে কোটি কোটি টাকা লুটপাট বন্ধ করে অবিলম্বে হাওরের জলাবদ্ধতা নিরসনের উদ্যোগ নিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। তিনি বলেন, ‘হাওর বাঁচলে দেশ বাঁচবে না। এতে দেশের জন্য বড় সংকট তৈরি হবে।’সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘জলাবদ্ধতা দূর করো, কৃষক বাঁচাও’শীর্ষক এক মানববন্ধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘হাওর এলাকার এই অবস্থার কারণে আজ আমরা ভীত। কিছু মানুষের স্বার্থের জন্য আজ কোটি কোটি মানুষের সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সরকারের ভ্রান্তনীতি, যেখানে যা করতে চায়, সেখানেই চুরি-ডাকাতি হয়।’ তিনি বলেন, ‘অনিয়মের জন্য বাঁধ ভেঙে ফসল নষ্ট হয়ে যায়। জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। তাই অবিলম্বে হাওরের জলাবদ্ধতা নিরসনে সরকারকে স্থায়ী ব্যবস্থা নিতে হবে। আর যদি সরকার এই সমস্যা সমাধানে ব্যর্থ হয়, তবে আগামীতে বিএনপি সরকারই ভাটি অঞ্চলের মানুষের দাবি পূরণ করবে।মানববন্ধনে সভাপতি ড. সাখায়াত হোসেন জীবন বলেন, ‘নদী-খাল পুনঃখনন না করে যত্রতত্র রাস্তাঘাট নির্মাণের জন্য আজ এই অবস্থা। আগাম বন্যায় গত বছর ফসল নষ্ট হয়েছে। এবছরও বীজ বপনের কোনও উপায় নেই। কারণ হেক্টরের পর হেক্টর জমিতে পানি জমে আছে। তাই কোটি কোটি মানুষকে বাঁচানোর কথা চিন্তা করে জলাবদ্ধতা নিরসনের ব্যবস্থা করতে হবে।বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট ফজলুর রহমান বলেন, ‘হাওর থেকে পানি নামছে না। ভাটি এলাকা বাঁচাতে হবে। তা না হলে আগামীতে ১৩০ টাকা দরে চাল কিনতে হবে।’তিনি বলেন, ‘এই সরকার জনগণের নির্বাচিত সরকার নয়, তাই তারা জনগণের দুঃখ-কষ্ট বুঝে কোনও ব্যবস্থা নেয় না।মানববন্ধনে আরো উপস্থিত ছিলেন, সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি কলিম উদ্দিন আহমেদ মিলন, সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নুরুল ও ময়মনসিংহ বিভাগ বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সালেহ প্রিন্স প্রমুখ।

More News from বাংলাদেশ

More News

Developed by: TechLoge

x