ডিএনসিসিতে আ.লীগের পরাজয় হয়েছে : খসরু

Posted on by

পরাজয়ের ভয়ে সরকার ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচন স্থগিত করেছে, এ দাবি করে বিএনপি নেতা আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, এর মাধ্যমে মূলত তাদের পরাজয় হয়েছে।আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও ক্ষমতাসীনদের পরাজয় ঘটবে বলে ভবিষ্যৎবাণী করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য।শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে কনফারেন্স লাউঞ্জে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ ভবিষ্যৎবাণী করেন।বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ‘প্রতিহিংসার রাজনীতি, বিপন্ন গণতন্ত্র ও মানবাধিকার’ শীর্ষক এ আলোচনা সভার আয়োজন করে ‘বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক দল’ নামের একটি সংগঠন।

আমির খসরু মাহমুদ বলেন, ডিএনসিসি নির্বাচনে তারা বিশালভাবে পরাজিত হতো। এই জন্য তারা এই নির্বাচনকে ভণ্ডুল করে দিয়েছে। তারা চিন্তা করেছে, এই নির্বাচনে তাদেরকে জয়লাভ করতে হলে জনগণের ভোটাধিকার হরণ করা ছাড়া কোনো পথ নেই। আর তা না হলে তাদের পরাজয় হবে।এটার মাধ্যমে স্পষ্ট, ডিএনসিসি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের পরাজয় হয়েছে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও তাদের পরাজয় নিশ্চিত’, বলেন বিএনপি এই নেতা।আগামী নির্বাচনে নিজের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন কি না- জনগণের মাঝে সেই প্রশ্ন দেখা দিয়েছে বলেও দাবি করেন আমির খসরু।ওই নির্বাচনে আগে জনগণের মাঝে অনেকগুলো প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। প্রশ্নগুলো হচ্ছে- নির্বাচনে বাংলাদেশের মানুষ ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবে কি না? নাগরিক অধিকার, গণতান্ত্রিক অধিকার, সাংবিধানিক অধিকার অর্থাৎ আমার ভোট আমি প্রয়োগ করতে পারব কি না? এই প্রশ্নগুলো সবার সামনে উঠে এসেছে,’ বলেন তিনি।

জনগণকে ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত রেখে সরকার ক্ষমতা দখলের জন্য একটি নির্বাচনী প্রকল্প হাতে নিয়েছে, মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘এর জন্য প্রয়োজনীয় যা যা করার সব কিছু করছে এবং করবে। সেজন্য বিএনপির চেয়ারপারসনকে মামলা দিয়ে ব্যস্ত রেখে প্রকল্পের অংশ হিসেবে কাজ করছে।’

ডিএনসিসি নির্বাচন স্থগিতের পর আগামী সংসদ নির্বাচন নিয়ে সরকারের ভাবনা আরো স্পষ্ট হয়েছে বলে মন্তব্য করেন বিএনপির অন্যতম এই নীতিনির্ধারক।তিনি বলেন, ‘বিএনপির নির্বাচনী প্রস্তুতি দেখে ক্ষমতাসীনরা ভেবেছে, এই নির্বাচন তাদের জন্য ভালো হবে না। তারা জানত, এই নির্বাচনে তাদের পরাজয় নিশ্চিত। বিগত সিটি নির্বাচনেও তাদের পরাজয় হয়েছিল।আয়োজক সংগঠনের সভাপতি হুমায়ূন কবির বেপারির সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য দেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, স্বনির্ভরবিষয়ক সম্পাদিকা শিরিন সুলতানা, জাসাসের প্রাক্তন সভাপতি রেজাবুদ্দদৌলা চৌধুরী, জাতীয়তাবাদী নাগরিক দলের সভাপতি শাহজাদা সৈয়দ মো. ওমর ফারুক প্রমুখ।

More News from বাংলাদেশ

More News

Developed by: TechLoge

x