ফিলিপাইনে টেম্বিন ঝড়ে শতাধিক মানুষের মৃত্যু

Posted on by

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ফিলিপাইনের দক্ষিণাঞ্চলে বন্যা ও ভূমিধসে নিহতের সংখ্যা শতাধিক ছাড়িয়ে গেছে। এখনও নিখোঁজ রয়েছেন অনেকে। শনিবার দেশটির পুলিশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তারা এই তথ্য জানিয়েছেন।কর্মকর্তারা জানান, দক্ষিণাঞ্চলের মিন্দানাও দ্বীপে শুক্রবার রাতে বন্যা ও ভূমিধস দেখা দেয়। এখানেই বেশির ভাগ মানুষ নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে তুবোদ, এল সালভাদর ও মুনাই শহরে ৬০ জন, জাম্বোয়াঙ্গা ডেল নরটে প্রদেশে ৪২ এবং বুকিদনন প্রদেশে ১৮জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া ৬৪ জন নিখোঁজ রয়েছেন।দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তারা জানান, নদীর তীর ও উপকূলীয় এলাকার অনেক মানুষ সতর্কতা উপেক্ষা করে বাড়িতে থেকে যাওয়ার কারণে এই প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে।

কর্মকর্তা ম্যাগুয়েল লুইস ওচোটোরেনা বলেন, বন্যার পানি খুব দ্রুত গতিতে আঘাত হানায় অনেক মানুষ স্রোতে ভেসে গেছেন। তারা সতর্কতাকে পাত্তা দেননি। তারা মনে করেছিলেন, এটা স্বাভাবিক বৃষ্টির সতর্কতা।দ্বীপটির পূর্বাঞ্চলের কয়েকশ কিলোমিটার দূরে সেনাবাহিনী ও জরুরি সেবার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, একটি গ্রাম পুরোপুরি ভূমিধসে চাপা পড়েছে।স্থানীয় কর্মকর্তা রায়ান কাবুস জানান, বিদ্যুৎ ও যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হওয়াতে উদ্ধার অভিযান ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।আবহাওয়া ব্যুরো জানিয়েছে, সুলু সাগরে ঝড়টি শক্তি সঞ্চয় করে  এবং বাতাসের গতি ছিল ঘণ্টায় ৮০ কিলোমিটার। পরে তা ঘণ্টায় ২০ কিলোমিটার গতিতে পশ্চিম দিকে এগিয়ে যায়। শনিবার দুপুরে ঝড়টি সাগরের দিকে এগিয়ে যায়। সোমবারের মধ্যে তা ফিলিপাইন অতিক্রম করবে।জরুরি সেবার কর্মী, সেনা, পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবীরা উদ্ধারকাজে অংশ নিচ্ছেন। ধ্বংসস্তূপ সরানো, বিদ্যুৎ ও যোগাযোগ ব্যবস্থা পুনরায় স্থাপনের কাজেও যোগ দিচ্ছেন তারা।এর আগে গত সপ্তাহে ঝড়ের তাণ্ডবে দেশটির মধ্যাঞ্চলে ৪৬ জনের মৃত্যু হয়। ২০১৩ সালে প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড় হাইয়ানের তাণ্ডবে ফিলিপাইনে প্রায় আট হাজার মানুষের মৃত্যু হয়। গৃহহীন হন প্রায় দুই লাখ পরিবারের সদস্যরা। সূত্র: রয়টার্স।

More News from স্বাস্থ্য

More News

Developed by: TechLoge

x